শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি আগামী ৩১ জুলাই পর্যন্ত

 

 

দেশে করোনা পরিস্থিতির আরও অবনতি হওয়ায় মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং এবতেদায়ি ও কওমি মাদরাসাসমূহের চলমান ছুটি আগামী ৩১ জুলাই পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

(২৯ জুন) মঙ্গলবার শিক্ষামন্ত্রীর দফতর থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

শিক্ষামন্ত্রীর দফতরের তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা এম এ খায়ের স্বাক্ষরিত ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, সারা দেশে করোনা পরিস্থিতি আরও অবনতি হওয়ায় এবং কঠোর লকডাউন কার্যকর থাকায়; শিক্ষার্থী, শিক্ষক, কর্মচারী ও অভিভাবকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও সার্বিক নিরাপত্তা বিবেচনায় কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় পরামর্শক কমিটির সঙ্গে পরামর্শক্রমে দেশের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এবং এবতেদায়ি ও কওমি মাদরাসাসমূহের চলমান ছুটি আগামী ৩১ জুলাই পর্যন্ত বাড়ানো হলো।’

গেল বছরের ( ৮ মার্চ) দেশে প্রথম করোনা সংক্রমণ ধরা পড়ে। এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ প্রথম মৃত্যু হয় করোনায়। তার আগের দিন, অর্থাৎ ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করে সরকার। এরপর করোনা পরিস্থিতির ক্রম অবনতি হওয়ায় দফায় দফায় ছুটি বাড়ানো হয়।

ঈদুল ফিতরের পর ( ২৩ মে) স্কুল-কলেজ ও ২৪ মে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খুলে দেয়ার কথা ছিল। কিন্তু সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় ও দেশে ভারতীয় ভেরিয়েন্ট চলে আসায় পূর্বঘোষিত সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে সরকার।

এরইমধ্যে গেল ( ১৩ জুন) দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার কথা থাকলেও করোনা পরিস্থিতি অনুকূলে না থাকায় সেটিও সম্ভব হয়নি। সব শেষ ঘোষণায় ৬ জুলাই পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়ানো হয়। এবার সেটি করা হলো ৩১ জুলাই পর্যন্ত।

এদিকে এক বছরেরও বেশি সময় ধরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সাধারণ ছুটি বলবৎ থাকায় প্রাথমিক থেকে উচ্চশিক্ষা পর্যন্ত প্রায় ৪ কোটি শিক্ষার্থীর পড়ালেখা মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে। ক্লাস-পরীক্ষা বন্ধ থাকায় শিক্ষার্থীদের অনেকে ঘাটতি নিয়ে ওপরের ক্লাসে উঠছে।

সম্প্রতি এক বেসরকারি গবেষণায় দেখা গেছে, করোনা ভাইরাসের কারণে বন্ধ প্রাথমিকের ১৯ শতাংশ ও মাধ্যমিকের ২৫ শতাংশ শিক্ষার্থী শিখতে না পারার বা শিক্ষণ ঘাটতির ঝুঁকিতে আছে। এমন অবস্থায় শিক্ষার এ ক্ষতি পুষিয়ে নিতে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনার তাগিদ দিচ্ছেন শিক্ষাবিদেরা।

 

 

আপনার মতামত প্রদান করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের অন্যান্য