বাংলাদেশ ব্যাংকসহ দেশের দুই শতাধিক প্রতিষ্ঠানে সাইবার হামলা চালিয়েছে  ‘হাফনিয়াম’

 

বাংলাদেশ ব্যাংক, টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি, অন্যান্য ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানসহ দেশের দুই শতাধিক প্রতিষ্ঠানে সাইবার হামলা চালিয়েছে ‘হাফনিয়াম’ নামের একটি হ্যাকার গ্রুপ। প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে এই হ্যাকার গোষ্ঠী বিভিন্ন তথ্য হাতিয়ে নিয়েছে। এতে করে বিপুল পরিমাণ আর্থিক ক্ষতির শঙ্কা তৈরি হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের পরিচালক ও বাংলাদেশ সরকারের ই-গভার্নমেন্ট কম্পিউটার ইনসিডেন্ট রেসপন্স টিম-এর প্রকল্প পরিচালক তারেক এম বরকতউল্লাহ।

তিনি জানান, নেটওয়ার্ক অপারেটিং সিস্টেম থেকে মনিটর করার সময় এই হামলার বিষয়টি শনাক্ত হয়। দুইশোটির বেশি প্রতিষ্ঠানের সার্ভারে মধ্যে হাফনিয়ামের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। ই-মেইলের মাধ্যমে এ হামলা পরিচালনা করা হয়।

গতকাল বৃহস্পতিবার ‘বিজিডি ই গভ সার্ট ওয়েবসাইট’- এ (https://www.cirt.gov.bd/) এ বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছে।

প্রতিষ্ঠানটি সাইবার নিরাপত্তা ও সংঘটনা ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে তথ্য-প্রযুক্তি খাতে গৃহিত সরকারের উদ্যোগগুলোর উন্নয়ন ও বিকাশে সহযোগিতা করে।

সাইবার গুপ্তচরবৃত্তির গোষ্ঠী ‘হাফনিয়াম’ বিভিন্ন সময় বড় ধরনের হামলার হুমকি দেয়। চীন সরকারের সঙ্গে এই হ্যাকার গ্রুপটি সম্পর্কযুক্ত, এমনটি বলা হয়ে থাকে।

সাইবার হামলায় জড়িত চীনভিত্তিক ক্যাম্পেইনটি সম্প্রতি মাইক্রোসফট এক্সচেঞ্জ সফটওয়ারে শনাক্ত হয়েছে। অত্যন্ত সুকৌশলে তারা ই-মেইল চুরি করে নেয়ার পাশাপাশি কোনও উপায়ে কম্পিউটার সার্ভারে ঢুকে যায় এবং দূর থেকে সার্ভারটি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নেয়।

হ্যাকিংয়ে খুবই দক্ষ ও পারদর্শী এই ‘হাফনিয়াম’ গ্রুপটি এর আগেও যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান টার্গেট করে সাইবার হামলা চালিয়েছিল।

হ্যাকার গ্রুপটি মাইক্রোসফট মেইল সার্ভার থেকে মেইলের মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহ করে বলেও জানান তারেক এম বরকতউল্লাহ।

তিনি বলেন, ‘হামলার শিকার প্রতিষ্ঠানগুলোয় এটা কীভাবে রিকভার বা শুদ্ধিকরণ করা যায়, সে বিষয়ে আমরা বিস্তারিত রিপোর্ট দিয়েছি। যাতে সবাই ওই রিপোর্ট দেখে সার্ভারগুলোকে রিস্টোর করতে পারে এবং হ্যাকারদের হামলা থেকে মুক্ত থাকতে পারে।’

 

আপনার মতামত প্রদান করুন
  • 6
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের অন্যান্য