ইউপি নির্বাচন: উচ্চ শব্দ হয় এমন কোনও যন্ত্র,  নির্ধারিত সময় ছাড়া  বাজানো যাবে না

প্রথম ধাপে ৩৭১টি ইউনিয়ন পরিষদে (ইউপি) আগামী ১১ এপ্রিল ভোটগ্রহণের মাধ্যমে শুরু হতে যাচ্ছে ইউনিয় পরিষদ সাধারণ নির্বাচন -২০২১। ইউপি নির্বাচন উপলক্ষে কিছু বিধিবিধান পরিপত্র আকারে জারি করেছে নির্বান কমিশন (ইসি)।

রবিবার জারি করা পরিপত্র-৪ অনুযায়ী, নির্বাচনী প্রচারের সময় দুপুর ২টার আগে এবং রাত ৮টার পর মাইক বা উচ্চ শব্দ হয় এমন কোনও যন্ত্র বাজানো যাবে না।

পরিপত্রে বলা হয়েছে, ‘নির্বাচনপূর্বক সময়ে অর্থাৎ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকে ভোটগ্রহণের দিন পর্যন্ত প্রত্যেক প্রার্থীকে ইউনিয়ন পরিষদ (নির্বাচন আচরন) বিধিমালা, ২০১৬ এর বিধিবিধানগুলো মেনে চলতে হবে। এই বিধি মালার বিধি-৫ অনুসারে কোনও প্রার্থী বা তার পক্ষে কোনও রাজনৈতিক দল, অন্য কোনও ব্যক্তি, সংস্থা বা প্রতিষ্ঠান রিটার্নিং কর্মকর্তার দেয়া প্রতীক বরাদ্দের আগে কোনও ধরনের নির্বাচনী প্রচার শুরু করতে পারবেন না।’

আরও বলা হয়, ‘কোনও প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী বা তার পক্ষে কোনও রাজনৈতিক দল বা কোনও ব্যক্তি, সংস্থা বা প্রতিষ্ঠান পথসভা বা নির্বাচনী প্রচার কাজে একটি ওয়ার্ডে একের অধিক মাইক্রোফোন বা শব্দের মাত্রা বৃদ্ধি করে এমন কোনও যন্ত্র ব্যবহার করতে পারবেন না। কোনও নির্বাচনী এলাকায় মাইক বা শব্দের মাত্রা বৃদ্ধি করে এমন কোনও যন্ত্রের ব্যবহার দুপুর ২টার আগে এবং রাত ৮টার পরে করা যাবে না।’

যানবাহন সংক্রান্ত বিধিনিষেধে বলা হয়, ‘কোনও প্রার্থী বা তার পক্ষে কোনও রাজনৈতিক দল, অন্য কোনও ব্যক্তি, সংস্থা বা প্রতিষ্ঠান কোনও ট্রাক, বাস, মোটরসাইকেল, নৌযান, ট্রেন কিংবা অন্য কোনও যান্ত্রিক যানবাহন সহকারে মিছিল বা মশাল মিছিল বা অন্য কোনও ধরনের মিছিল বের করতে পারবেন না কিংবা কোনও ধরনের শোডাউন করতে পারবেন না। নির্বাচনী কাজে হেলিকপ্টার বা অন্য কোনও আকাশযান ব্যবহার করা যাবে না। তবে দলীয় প্রধানের যাতায়াতের জন্য এগুলো ব্যবহার করা যাবে। কিন্তু যাতায়াতের সময় হেলিকপ্টার থেকে লিফলেট, ব্যানার বা অন্য কোনও প্রচার-সামগ্রী প্রদর্শন বা বিতরণ করতে পারবেন না।’

ভোটকেন্দ্রের নির্ধারিত চৌতদ্দির মধ্যে মোটরসাইকেল বা অন্য কোনও যান্ত্রিক যানবাহন চালানো যাবে না বলেও পরিপত্রে বলা হয়েছে। এছাড়া আরও কিছু বিধিনিষেধ পরিপত্র আকারে জারি করেছে নির্বাচন কমিশন।

উল্লেখ্য, প্রথম ধাপে মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন ১৮ মার্চ, মনোনয়নপত্র বাছাই ১৯ মার্চ, প্রার্থিতা প্রত্যাহার ২৪ মার্চ এবং ভোটগ্রহণ ১১ এপ্রিল।

 

 

আপনার মতামত প্রদান করুন
  • 6
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের অন্যান্য