জেনে নেই করলার স্বাস্থ্য উপকারিতা সম্পর্কে…

 

করলা, নামটি শুনলেই এক প্রকার তেতো জাতীয় সবজি চোখে ভেসে ওঠে। হয়তো তেঁতো বলেই অনেকেই সবজিটিকে এড়িয়ে চলে। তবে পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ করোলা কতটা উপকারী আপনি জানলে আর কখনও করোলা থেকে বিমুখ হবেন না। অনেকটা তেঁতো স্বাদে মিঠে গুণের মতো। চলুন জেনে নেই করলার স্বাস্থ্য উপকারিতা সম্পর্কে…

হজমে সহায়তা পেতে: করলা ফাইবার সমৃদ্ধ খাবার। এতে করে খাবার হজম ভালো হয় পাশাপাশি পেটও পরিষ্কার থাকে। সেই সাথে অ্যাসিডিটির সমস্যা কমায়। এই সবজিটিতে যে পরিমান ভিটামিন সি রয়েছে তা শরীর সুস্থ রাখতে অর্থাৎ রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে।

ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য: করলা ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য খুবই উপকারী। করলার জুস সুগারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে অনেক উপকারী। এছাড়া করলার রস ক্যানসার কোষ ধ্বংস করে এবং নতুন কোষ তৈরি হতে দেয় না।

দেহের ওজন কমানো: যাদের অতিরিক্ত ওজনের সমস্যায় রয়েছে তারা এখন থেকেই করলার রস খাওয়া শুরু করে দিতে পারেন। যদি খাবার ঠিকমতো ঠিক মতো হজম হতে থাকে, তাহলে শরীরে অতিরিক্ত ক্যালরি জমার সুযোগ পায় না, তাই দেহের ওজন হ্রাস পেতে শুরু করে। করলার রস নিয়মিত খেলে অল্প দিনেই আপনার ওজন নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে।

পাইলস সারাতে: যাদের পাইলসের সমস্যা রয়েছে তারা নিয়ম করে প্রতিদিন সকাল করলার রস খেতে পারেন যা আপনাকে খুব অল্পদিনের মধ্যেই পাইলসের যন্ত্র্না থেকে রেহাই দিবে। এছাড়া করলা গাছের মূল বেটে নিয়ে সেই পেস্ট পাইলসের উপর লাগালেও অনেক উপকার পাওয়া যায়।

৥ শক্তিবর্ধক: করলার রস শক্তিবর্ধক হিসেবেও কাজ করে। এটি স্ট্যামিনা বাড়ানোর পাশাপাশি ভালো ঘুমে সহায়তা করে। এই সবজিতে আছে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন এ যা দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখতে সাহায্য করে।

শ্বাসরোগ দূর করে: করলার রস মধুর সাথে মিশিয়ে খেলে ফুসফুস ভালো থাকে। এই রস অ্যাজমা, ব্রংকাইটিস ও গলার প্রদাহে উপকার করে। সবুজ এই সবজীটি ভিটামিন ও মিনারেল সমৃদ্ধ, যা ত্বক ভালো রাখে। এছাড়া ব্রণ সারাতে দারুণ কাজ করে।

 

 

 

আপনার মতামত প্রদান করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের অন্যান্য