স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে চায় মিনহাজ,অর্থের অভাবে আটকে আছে চিকিৎসা


রিপন আহমদঃ নয় বছর আগেই বাবাকে হারান মিনহাজ আহমদ(২০)। তিনি সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলার মানিকপুর ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর গ্রামের মৃত জালাল উদ্দিনের পুত্র। কিশোর বয়সেই হাল ধরেন পরিবারের। চার ভাই দুই বোনের মধ্যে সবার বড় তিনি।

চার বছর পূর্বে ২০১৬ সালের ডিসেম্বর মাসে এক মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় তার জীবনে নেমে আসে কালবৈশাখী ঝড়।মৃত্যুর দুয়ার থেকে ফিরে আসলেও শারীরিকভাবে অক্ষম হয়ে পড়েন তিনি।চার বছর থেকে বিছানায় পড়ে আছেন।কৃত্রিম উপায়ে চলছে প্রশ্রাব, পায়খানা।একটি বিস্কুট কোম্পানির সেল্সম্যান হিসেবে চাকুরী করতেন মিনহাজ।পিতৃহারা অভাবের সংসার চলতো তার বেতনে।

২০১৬ সালে জকিগঞ্জ -কেরাইয়া রোডে টমটম,লেগুনা সংঘর্ষে তিনি মারাত্মক আহত হন।এসময় তার ঘাড় ভেঙ্গে যায়,শ্বাসনালী ফেটে যায়।নতুন করে চিকিৎসকরা তার শ্বাসনালী প্রতিস্থাপন করেন।ঘাড়ের চিকিৎসার জন্য ঢাকা পঙ্গু হসপিটালে দীর্ঘদিন চিকিসা করেন।জমিজমা যা ছিল,সবি হারিয়েছেন চিকিসার জন্য।চিকিৎসকরা পরামর্শ দেন ঢাকার সাভার ব্যায়াম হসপিটালে ভর্তি হতে।সেখানে চিকিৎসা করলে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারে মিনহাজ। তবে ব্যায়াম হসপিটালে চিকিৎসা করা সামর্থ্য নেই মিনহাজের পরিবারের।

মিনহাজের মা চায়না বেগম কান্নাকাটি করে এ প্রতিবেদকের কাছে বলেন,আমার ছেলেকে ভাল করার জন্য আমাদের যা কিছু ছিল,সব হারিয়েছি।এখন আমাদের মাথাগোঁজার এই ঘর ছাড়া আর কিছুই নেই।সরকারি ভাবে চিকিৎসার জন্য পঞ্চাশ হাজার টাকা পেয়ছিলাম,সেটিও চিকিৎসার পিছনে ব্যয় করেছি।আমার ছেলের স্বাভাবিক জীবন ফিরে পেতে অনেক টাকার প্রয়োজন।আমি সরকার এবং দেশের বিত্তবান মানুষের কাছে সাহাজ্য কামনা করছি।মিনহাজ বলেন,আমি স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে চাই।আমার সুস্থ্যতার জন্য উন্নত চিকিৎসার প্রয়োজন।সরকার এবং দেশের বিত্তবান লোকদের কাছে আকুল আবেদন,আমাকে সাহাজ্য করুন।মানবিক কারনে আমার পাশে দাড়ান। মিনহাজের একাউন্ট হিসাব নাম্বার ৪৬১৫ রুপালি ব্যাংক, কালিগঞ্জ শাখা।

আপনার মতামত প্রদান করুন
  • 273
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের অন্যান্য