বিষাক্ত সম্পর্কের পরিণতি কখনই সুখকর নয়।

লাইফস্টাইল ডেস্ক :স্বল্প বা দীর্ঘ মেয়াদী যেমন সম্পর্কেই হোক না কেনো তাকে অবশ্যি সম্মান দেখান উচিত। তবে সম্মান দেখাতে গিয়ে তা যেন দুর্বলতার কারণ হয়ে না যায় সেদিকেও খেয়াল রাখতে হবে।

সম্পর্ক-বিষয়ক একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন অবলম্বনে যেসকল ভুল ধারণা সম্পর্ক নষ্ট করে সে সম্পর্কে জানানো হল।

সমঝোতা সুস্থ সম্পর্কের চাবিকাঠি

প্রচলিত একটা ধারণা রয়েছে যে, সম্পর্ক বাঁচাতে সমঝোতার প্রয়োজন। সত্যি বলতে এটা সম্পর্ককে সম্পূর্ণ বিষিয়ে তোলে। সমঝোতা ও বোঝাপড়া দুইটা একই ধরনের মনে হলেও তা বিভিন্ন দিক থেকে সম্পূর্ণ বিপরীত জিনিস।

বোঝাপড়া অনেক সময় সঙ্গীকে বিশেষ পরিস্থিতিতে বাঁচাতে সহায়তা করে। আর সমঝোতা বা আপোস সম্পর্ক খারাপ করে দেয়।

সঙ্গী সবসময় আপনাকে সমর্থন করবে

মানুষ মাত্রই ভুল করে। কিন্তু কোনো গুরুতর ভুল করার পরেও যদি ভেবে নেন যে সঙ্গী আপনার পক্ষ নেবে বা সমর্থন করবে তাহলে তা একদমই অবান্তর। এই ধরনের প্রত্যাশা সম্পর্ক নষ্ট করে দেয়। এমন প্রত্যাশার ওপর কোনো সম্পর্ক টিকতে পারে না। তাই সঙ্গী কখন ও কেনো আপনাকে সমর্থন করবে তা তাকেই ঠিক করতে দিন।

ফলাফল বরাবরই খারাপ

নিজে থেকেই ধরে নিয়েছেন যে, আপনাদের শেষ পরিণতি কখনই ভালো হবে না। একটা স্বাস্থ্যকর ও সুন্দর সম্পর্কে ধরে রাখতে ভাগ্যের ওপর অন্ধ বিশ্বাস না রেখে বরং নিজেই সঙ্গীর সঙ্গে ভালো সম্পর্ক বজায় রাখার ও যোগাযোগ করার চেষ্টা করুন।

আপনি বলার আগে সঙ্গী তা বুঝে যাবে

অনেকেই বিশ্বাস করেন, সঙ্গী তার মনের কথা মুখ ফুটে না বললেও ঠিকই বুঝতে পারবে; এটা আসলে ঠিক না। অনেকদিন একসঙ্গে থাকতে যেয়ে হয়ত একে অপরের সম্পর্কে ধারণা হয়ে যায়। তবে পুরোপুরি বুঝতে পারবে এই ধারণা করাও ভুল। তাই নিজের সম্পর্কে সাদা মনে সঙ্গীর কাছে মেলে ধরুন।

মত বিরোধ ও দ্বন্দ্ব সম্পর্ক নষ্ট করবে

প্রকৃত অর্থে, মতবিরোধ বা দ্বন্দ্ব নয় বরং নীরবতা বা চাটুকারিতা বা খোশামোদ সম্পর্ক নষ্ট করে ফেলে। সঙ্গীর সঙ্গে মতবিরোধ বা দ্বন্দ্ব থাকলে তা সম্পর্কে বোঝা-পড়ার মাত্রাকে উন্নত করতে সহায়তা করে। তাছাড়া এটা দুজনের মাঝে বুদ্ধিবৃত্তিক সম্পর্ক গড়ে তুলতে ভূমিকা পালন করে।

জকিগঞ্জ টাইমস / বিডি২০২০/ টমস 

 

আপনার মতামত প্রদান করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের অন্যান্য