শ্রীহট্টে মামনির(গুরুমা)লীলাকথা: সত্যিকারের গুরুদক্ষিণা

অজিত রায় ভজন : বহুগ্রন্থ প্রণেতা, নিভৃতচারী লেখক আমার পরম শ্রদ্ধেয়, শিক্ষাবিদ অধ্যক্ষ শ্রীনিবাস দে রচিত “শ্রীহট্টে মামনির(গুরুমা) লীলা কথা” এক অনুপম সৃষ্টি। গুরুভক্তির অনন্য প্রকাশ।

অধ্যাপক শ্রীনিবাস দে ১৯৪৩ সালের ৩১ ডিসেম্বর হবিগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন । ১৯৬৮ সালের জানুয়ারি মাসে সিলেট এম.সি কলেজে রসায়ন বিদ্যা বিভাগে লেকচারার হিসাবে যোগদান করেন এবং এ কলেজেই বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বপালনের মধ্য দিয়ে ১৯৯৮ সালে উপাধ্যক্ষের আসন গ্রহণ করেন। ১৯৯৯ সালে মহান বিদ্যাপীঠ এম.সি কলেজের অধ্যক্ষের মর্যাদাপূর্ণ আসনে তিনি আসীন হন। অতপর ২০০০ সালের ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে তিনি অবসর গ্রহণ করেন।

গুরুর প্রতি তাঁর একনিষ্ঠ শ্রদ্ধা-ভক্তি কতটুকু প্রগাঢ়, তাঁর এই বইটি একটি উৎকৃষ্ট প্রমাণ। গুরু মায়ের পিতৃভূমি বৃহত্তর সিলেট জেলার বর্তমান মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার মুন্সিবাজারের সন্নিকটে সরষকান্দি গ্রামে অবস্থিত।  মামনির পূর্বপুরুষেরা  জমিদার শ্রেণীর লোক ছিলেন।তাঁর পিতা ভারত বিভাগের পূর্ব থেকেই আসাম সচিবালয়ে কর্মরত ছিলেন। ১৯৪৭ সালে দেশ বিভাগের সময় কতিপয় সাম্প্রদায়িক  বিদ্বেষপূর্ণ দুর্বৃত্ত লোকেরা ভয়ভীতি দেখিয়ে দখল করে নেয় তাঁদের বাড়িঘর।

গুরুমা বর্তমানে ভারতের মেঘালয়ে ঠাকুর সূর্যানন্দ কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত শিলং যোগমায়া আশ্রমের দায়িত্বে আছেন।
দেশ বিভাগের পর তাঁর পিতৃভূমিতে আর যাওয়া হয়নি। শৈশবের সুমধুর স্মৃতি আজও তাঁর হৃদয়ে নাড়া দেয়।
আর গুরুমা তাঁর মনের এই একান্ত বাসনাটি যখন প্রকাশ করলেন ভক্তদের কাছে, তখন যোগ্য শিষ্য লেখক কিভাবে গুরুমা-কে তাঁর জন্মভূমি-তে নিয়ে এসে তা-ই দর্শন করালেন তা বইটিতে চমৎকার ভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন তাঁর অনবদ্য লেখনশৈলী-তে। আমি সেটিকে বলবো সত্যিকারের গুরুদক্ষিণা।

বইটি তে অনেক জানা-অজানা দর্শনীয় স্থানের কথা লেখক সুচারু ভাবে তুলে ধরেছেন তাঁর শৈল্পিক কলমে। বিশেষ করে অনেকের কাছে অজানা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে থাকা একান্ন পীঠস্থানের অন্যতম বামজঙ্গা যা আমাদের সিলেটে। সেটিও জানা হলো এই গ্রন্থটি পাঠ করে।সিলেটের কানাইঘাট উপজেলার খাসিয়া জয়ন্তিয়া পাহাড়ের পাদদেশে সীমান্ত অঞ্চলে বামজঙ্গা শক্তিপীঠ অবস্থিত।লেখক তাঁর বর্ণনায় যে যে স্থানের কথা উল্লেখ করেছেন প্রতিটি স্থানে কিভাবে গিয়েছেন চমৎকার ভাবে সেগুলো বর্ণনা করেছেন, এতে করে পাঠকরাও সহজে সেখানে পৌঁছে যেতে পারবেন বলে আমি মনে করি।

সর্বোপরি গুরু ভক্তির অনন্য উদাহরন গুরুমা (মামনি)র সিলেট ভ্রমণ এই চমৎকার বইটি।বইটি উৎসর্গ করা হয়েছে যাঁকে নিবেদন করে বইটি লিখেছেন সেই গুরুমা মামনি শ্রীযুক্তা নিবেদিতা দেবী-র করকমলে। এটি প্রকাশ করেছেন স্বপ্না দে, প্রকাশ কাল ২০১৯। বইটির প্রাপ্তি স্থান নিউ নেশন লাইব্রেরী,পুরান লেন,সিলেট এবং ৮৯,গোপালটিলা,টিলাগড়, সিলেট। প্রচ্ছদে গুরুমা-র শ্বেতশুভ্র চিত্রপটটি চমৎকার — আমি বইটির বহুল প্রচার কামনা করছি,এবং এটি পাঠকপ্রিয়তা লাভ করুক এই প্রার্থনা করছি।

আপনার মতামত প্রদান করুন
  • 29
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের অন্যান্য