আলিয়ার ঘরেই রণবীর

বিনোদন ডেস্ক: লকডাউনের শুরুর দিনগুলোতে আলিয়া ভাট রণবীর কাপুরের সঙ্গে ছিলেন। তাঁদের একসঙ্গে পোষা কুকুর নিয়ে হাঁটার ভিডিও ভাইরাল হয়েছে।

এর মধ্যে রণবীরের বাবা ঋষি কাপুর অসুস্থ হলে রণবীর বাসায় চলে যান। আর আলিয়া রাস্তায় হেঁটে বাবাকে দেখতে যান। বাবার শরীর বেশি খারাপ শুনে বাড়ি চলে গিয়েছিলেন রণবীর।

তারপর ৩০ এপ্রিল প্রায় দুই বছর বোনম্যারো ক্যানসারে ভুগে ৬৭ বছর বয়সে মারা যান ঋষি কাপুর। প্রেমিকের বাবার মৃত্যুতে পুরোটা সময় শোকে কাতর পরিবারের পাশে ছিলেন আলিয়া।

সব দায়িত্ব পালন করেছেন পুত্রবধূর মতোই। প্রার্থনা অনুষ্ঠানেও পাশাপাশি ছিলেন রণবীর আর আলিয়া। আর এখন শোনা যাচ্ছে, আবারও প্রেমিকার সঙ্গেই থাকছেন রণবীর। কথা ছিল, ঋষি কাপুর আরেকটু সুস্থ হলেই বাজবে রণবীর–আলিয়ার বিয়ের বাদ্য।

বছরের শুরুতে এই নিয়ে চলেছে নানা জল্পনা–কল্পনা। কিন্তু তার আগেই করোনা মহামারিতে ছেয়ে গেল বিশ্ব। শুরু হলো লকডাউন। আর এর মধ্যেই ক্যানসারের সঙ্গে যুদ্ধে ইস্তফা দিয়ে চলে গেলেন ঋষি কাপুর। দীর্ঘদিন ধরে রণবীর আর আলিয়া একসঙ্গে থাকেন।

ঋষি কাপুরের মৃত্যুর পর অনেকে ভেবেছিল যে রণবীর বোধ হয় এবার মায়ের সঙ্গে থাকবেন। মায়ের হাত শক্ত করে ধরবেন। কারণ, এই মুহূর্তে ছেলে রণবীরের সঙ্গ সবচেয়ে প্রয়োজন মা নিতু সিংয়ের।

কিন্তু রণবীর আবারও নিজের মুম্বাইয়ের বাড়িতে আলিয়ার সঙ্গে থাকছেন। আর তাই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ট্রলকারীরা রণবীরকে এ নিয়ে রীতিমতো তুলাধোনা করছেন। সমালোচনা আর কটু মন্তব্য চলছেই।

তাঁরা বলছেন, এই দুঃখের সময়ে রণবীরের উচিত তাঁর মায়ের সঙ্গে থাকা। ছেলে হিসেবে মায়ের দুঃখ ভাগ করা উচিত। তবে এ ব্যাপারে রণবীরের কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

অন্যদিকে আলিয়া ভাট লেখালেখির ওপর অনলাইনে কোর্স করছেন। বই পড়ছেন। নিয়ম করে ব্যায়াম করছেন। চুল কাটার ছবি দিয়ে লিখেছেন, তাঁর একজন ‘মাল্টিট্যালেন্টেড’ ভালোবাসার মানুষ নাকি চুল কেটে দিয়েছে।

এমএনআই

আপনার মতামত প্রদান করুন
  • 1
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের অন্যান্য