পুলিশ বাহিনীর সাম্প্রতিক কর্মযজ্ঞ নিয়ে যা বললেন সিলেটের পুলিশ সুপার

নিউজ ডেস্ক : জনগণের জান ও মালের নিরাপত্তা বিধান, অপরাধ দমন ও নিবারণ করা, নিয়মিত মামলা সমূহের তদন্ত ,রহস্য উদঘাটন এবং আসামি গ্রেপ্তার করার পাশাপাশি সামাজিক সুরক্ষা নিশ্চিত করা বাংলাদেশ পুলিশের মৌলিক দায়িত্ব গুলোর অন্যতম ।কিন্তু চলমান করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে বাংলাদেশ পুলিশের প্রত্যেকটি সদস্য অত্যন্ত আন্তরিকতা, পেশাদারিত্ব এবং সামাজিক দায়বদ্ধতা নিয়ে মানুষের পাশে যেভাবে দাঁড়িয়েছে- সহকর্মীদের এমন বিরল আন্তরিকতা সত্যিই প্রশংসনীয়। করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে জনসচেতনতা তৈরি করার পাশাপাশি মানুষকে হোম কোয়ারেন্টাইন মানতে বাধ্য করা, বাজার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা, সোশ্যাল ডিস্টেন্স মেইনটেন করা, থানা এলাকার বড় বড় কাঁচাবাজার গুলোকে অন্যত্র স্থানান্তর করা, লকডাউন মেন্টেন করতে গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা সমূহ সার্বক্ষণিক -দিন রাত ,রোদ -বৃষ্টির মাঝে চেকপোষ্ট স্থাপন করে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদির গাড়ি সমূহ চলাচল নির্বিঘ্ন করার পাশাপাশি অবাঞ্ছিত এবং অনাকাঙ্ক্ষিত গাড়ি এবং যাত্রীগণকে জেলার ভিতরে প্রবেশ করতে না দেওয়ার নিরন্তন প্রচেষ্টা চালাচ্ছে জেলা পুলিশের প্রতিটি সদস্য।

সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে খাদ্য সংকটে পড়া দিনমজুর, অসহায়-গরীব মানুষকে খাদ্য সামগ্রী প্রদান করার পাশাপাশি মধ্যবিত্ত এবং নিম্ন মধ্যবিত্ত মানুষকে তাদের ফোন কলের ভিত্তিতে আমাদের জেলা পুলিশের সদস্যরা যেভাবে দিনে এবং রাতে, মানুষের বাড়ি- বাড়ি গিয়ে কোন আনুষ্ঠানিকতা ছাড়াই নিভৃতে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছেন-নিশ্চয়ই মানবিক পুলিশ হওয়া এবং জনবান্ধব পুলিশ হওয়ার পথে অনেক দূর এগিয়ে গেল বাংলাদেশ পুলিশ।

লেখক,মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন পিপিএম, পুলিশ সুপার,সিলেট।

আপনার মতামত প্রদান করুন
  • 62
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
এ বিভাগের অন্যান্য